Header Ads

তিন শিশু উদ্ধার, পাঁচ ‘অপহরণকারী’ আটক

পাবনার ঈশ্বরদী থেকে অপহরণের  শিকার তিন শিশুকে উদ্ধারের কথা জানিয়েছে পুলিশ। একইসঙ্গে এ ঘটনা জড়িত সন্দেহে দুই নারীসহ পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।
গতকাল রোববার রাতে ঈশ্বরদী থানায় আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে জেলার অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জহুরুল হক এ কথা জানান।
পুলিশের মতে, গত ২৩ জুন ঈশ্বরদীর পৌর এলাকার এম এস কলোনি থেকে ভারতে পাচারের উদ্দেশে একটি সংঘবদ্ধ অপহরণকারী চক্র তিন শিশুকে অপহরণ করে। এই শিশুরা গরিব ও প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর পরিবারের সন্তান। তিন শিশু হলো  জিম (১১), জিম (৯) এবং শাহিন (১১)। হেরোইনসেবী আসামিরা মাদকের টাকার জন্য শিশুদের অপহরণ করে ভারতের সীমান্তে দালালদের মাধ্যমে পাচার করে বলেও পুলিশ জানায়।
আটক পাঁচজন হলেন- রুবেল ওরফে সাদ্দাম ওরফে মুন্না ওরফে নিরব (২৬), রেজাউল (২১), সুমন (১৯),  সালমা (২০) ও রাবেয়া (৩৫)।
অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জহুরুল হক জানান, শিশুদের নিখোঁজের বিষয়ে ঈশ্বরদী থানায় অভিযোগ করা হলে পুলিশ তৎপরতা শুরু করে। এ ব্যাপারে বিভিন্ন থানায় তথ্য পাঠানো হয়। পুলিশ মোবাইল ফোন ট্র্যাকিংয়ের মাধ্যমে জানতে পারে এরা নওগাঁ জেলার আত্রাই থানায় অবস্থান করছে। এ অবস্থায় আত্রাই থানার সহযোগিতা নিয়ে গত ২৪ জুন ভরতেঁতুলিয়া স্টেশনপাড়া এলাকার একটি দোকানে বসে থাকা শিশুদের উদ্ধার এবং আসামিদের গ্রেপ্তার করা হয়। পরে ৫ জুন তাদের ঈশ্বরদীতে আনা হয়।
আসামিদের জিজ্ঞাসাবাদের বর্ণনা দিয়ে পুলিশ কর্মকর্তা জহুরুল হক বলেন, এসব শিশুদের তারা ২৩ হাজার টাকায় বিক্রি করে। এর আগে তারা বগুড়া, যশোহর বিভিন্ন স্থান থেকে বাচ্চা চুরি করেছে বলে জানিয়েছে। বিভিন্ন এলাকা থেকে গরিব ও প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর ৮ হতে ১২ বছর বয়সী পথ শিশুদের প্রলোভন দেখিয়ে অপহরণ করে ভারতে পাচার করে। গরিব বাবা-মা হারানো জিডি করে কিন্তু ছেলে আর ফিরে আসে না।
পুলিশ কর্মকর্তা আরো বলেন, ‘কিন্তু এখন হতে আর এমন হবে না, আমরা হতে দিব না। পুরো গ্যাংটাকে গ্রেপ্তার করব ইনশা আল্লাহ।’
coppy news ntv

No comments

Powered by Blogger.