Header Ads

আল কুরান অনুবাদ

1505263-338142419699828-8.jpg

আল কোরআনসুরা আল আন'আম : আয়াত ৩২ﻭَﻣَﺎ ﺍﻟْﺤَﻴَﺎﺓُ ﺍﻟﺪُّﻧْﻴَﺎ ﺇِﻟَّﺎ ﻟَﻌِﺐٌ ﻭَﻟَﻬْﻮٌ ۖ ﻭَﻟَﻠﺪَّﺍﺭُﺍﻟْﺂﺧِﺮَﺓُ ﺧَﻴْﺮٌ ﻟِّﻠَّﺬِﻳﻦَ ﻳَﺘَّﻘُﻮﻥَ ۗ ﺃَﻓَﻠَﺎ ﺗَﻌْﻘِﻠُﻮﻥَ -দুনিয়ার জীবন তো একটি খেল-তামাসার ব্যাপার। আসলে যারা ক্ষতির হাত থেকে বাঁচতে চায় তাদের জন্য আখেরাতের আবাসই ভালো। তবেকি তোমরা বুদ্ধি-বিবেচনাকে কাজে লাগাবে না?ব্যাখ্যা:এর মানে এ নয় যে, দুনিয়ার জীবনটি নেহাত হাল্কা ও গুরুত্বহীন বিষয়, এর মধ্যে কোন গাম্ভীর্য নেই এবং নিছক খেল-তামাসা করার জন্য এ জীবনটি তৈরী করা হয়েছে। বরং এর মানে হচ্ছে, আখেরাতের যথার্থ ও চিরন্তন জীবনের তুলনায় দুনিয়ার এ জীবনটি ঠিকতেমনি যেমন কোন ব্যক্তি কিছুক্ষণখেলাধূলা করে চিত্তবিনোদন করে তারপর তার আসল ও গুরুত্বপূর্ণ কাজ কারবারে মনোনিবেশ করে। তাছাড়া একে খেলাধূলার সাথে তুলনাকরারকারণ হচ্ছে এই যে, এখানে প্রকৃত সত্য গোপন থাকার ফলে যারা ভেতরে দৃষ্টি না দিয়ে শুধুমাত্রবাইরেরটুকু দেখতে অভ্যস্ত তাদের জন্যবিভ্রান্তির শিকার হবার বহুতর কারণ বিদ্যমান।এসব বিভ্রান্তির শিকার হয়ে মানুষ প্রকৃতসত্যের বিরুদ্ধে এমন সব অদ্ভুত ধরনেরকর্মপদ্ধতি অবলম্বন করে যারফলশ্রুতিতে তাদের জীবন নিছক একটি খেলা ওতামাসার বস্তুতে পরিণত হয়। যেমনযে ব্যক্তি এ পৃথিবীতে বাদশাহেরআসনে বসে তার মর্যাদা আসলে নাট্যমঞ্চেরসেই কৃত্রিম বাদশাহর চাইতে মোটেই ভিন্নতরনয় যে, সোনার মুকুট মাথায়দিয়ে সিংহাসনে বসে এবং এমনভাবে হুকুমচালাতে থাকে যেন সে সত্যিকারের একজনবাদশাহ। অথচ প্রকৃত বাদশাহীর সামান্যতমনামগন্ধও তার মধ্যে নেই। পরিচালকের সামান্যইঙ্গিতেই তার বরখাস্ত, বন্দী ও হত্যারসিদ্ধান্তও হয়ে যেতে পারে। এ দুনিয়ার সর্বত্র এধরনের অভিনয়ই চলছে। কোথাও কোন পীর-অলী বা দেব-দেবীর দরবারে মনস্কামনা পূরণেরজন্য প্রার্থনা করা হচ্ছে। অথচসেখানে মনস্কামনা পূর্ণ করার ক্ষমতার লেশমাত্রও নেই। কোথাও অদৃশ্য জ্ঞানের কৃতিত্বেরপ্রকাশ ঘটানো হচ্ছে। অথচ সেখানে অদৃশ্যজ্ঞানের বিন্দু বিসর্গও নেই। কোথাও কেউমানুষের জীবিকার মালিক হয়ে বসে আছে। অথচসে বেচারা নিজের জীবিকার জন্য অন্যেরমুখাপেক্ষী। কোথাও কেউ নিজেকে সম্মান ওঅপমানের এবং লাভ ও ক্ষতির সর্বময়কর্তা মনে করে বসে আছে। সে এমনভাবে নিজেরশ্রেষ্ঠত্বের ডংকা বাজিয়ে চলছে যেন মনে হয়,আশপাশের সমুদয় সৃষ্টির সে এক মহাপ্রভু। অথচতার ললাটে চিহ্নিত হয়ে আছে দাসত্বের কলঙ্কটীকা। ভাগ্যের সামান্য হেরফেরই শ্রেষ্ঠত্বেরআসন থেকে নামিয়ে তাকে সেসব লোকেরপদতলে নিষ্পিষ্ট করা হতে পারে যাদের ওপরকাল পর্যন্তও সে প্রভুত্ব ও কৃর্তত্বচালিয়ে আসছিল। দুনিয়ার এই মাত্র কয়েকদিনেরজীবনেই এসব অভিনয় চলছে। মৃত্যুর মুহূর্তআসার সাথে সাথেই এক লহমার মধ্যেই এসবকিছুই বন্ধ হয়ে যাবে। এ জীবনের সীমান্ত পারহবার সাথে সাথেই মানুষ এমন একজগতে পৌঁছে যাবে যেখানে সবকিছুই হবে প্রকৃতসত্যের অনুরূপ এবং যেখানে এ দুনিয়ার জীবনেরসমস্ত বিভ্রান্তির আবরণখুলে ফেলে দিয়ে মানুষকে দেখিয়ে দেয়া হবে কি পরিমাণসত্য সে সাথে করে এনেছে। সত্যের মীযানতথা ভারসাম্যপূর্ণ তুলাদণ্ডে পরিমাপ করে তারমূল্য ও মান নির্ধারণ করা হবে।

No comments

Powered by Blogger.