Header Ads

উম্মতে মুহাম্মদীর জন্য জুম’আর দিনের ফযীলত সমূহ১)সূর্য উদিত হয় এমন দিনগুলোর মধ্যে জুম’আর দিন হল সর্বোত্তম দিন। এ দিনে যা কিছু ঘটেছিল তা হলঃ(ক) এই দিনে আদম (আঃ) কে সৃষ্টি করা হয়েছিল,(খ) এই দিনেই তাঁকে জান্নাতে প্রবেশ করানো হয়েছিল,(গ) একই দিনে তাঁকে জান্ন

উম্মতে মুহাম্মদীর জন্য জুম’আর দিনের ফযীলত সমূহ১)সূর্য উদিত হয় এমন দিনগুলোর মধ্যে জুম’আর দিন হল সর্বোত্তম দিন। এ দিনে যা কিছু ঘটেছিল তা হলঃ(ক) এই দিনে আদম (আঃ) কে সৃষ্টি করা হয়েছিল,(খ) এই দিনেই তাঁকে জান্নাতে প্রবেশ করানো হয়েছিল,(গ) একই দিনে তাঁকে জান্নাত থেকে বের করে দেওয়া হয়েছিল [মুসলিমঃ৮৫৪],(ঘ) একই দিনে তাঁকে দুনিয়াতে পাঠানোহয়েছিল,(ঙ) এই দিনেই তাঁর তওবা কবুল করা হয়েছিল,(চ) এই দিনেই তাঁর রূহ কবজ করা হয়েছিল [আবু দাউদঃ১০৪৬],(ছ) এই দিনে শিঙ্গায় ফুঁক দেওয়া হবে,(জ) এই দিনেই কিয়ামত হবে,(ঝ) এই দিনেই সকলেই বেহুঁশ হয়ে যাবে [আবু দাউদঃ১০৪৭],(ঞ) প্রত্যেক নৈকট্যপ্রাপ্ত ফেরেশতা, আকাশ, পৃথিবী, বাতাস, পর্বত ও সমুদ্র এই দিনটিকে ভয় করে। [ইবনে মাজাহঃ১০৮৪, ১০৮৫; মুয়াত্তাঃ৩৬৪]।২)উম্মতে মুহাম্মদীর জন্য এটি একটি মহান দিন। এ জুম’আর দিনটিকে সম্মান করার জন্য ইহুদী-নাসারাদের উপর ফরজ করা হয়েছিল; কিন্তু তারা মতবিরোধ করে এই দিনটিকে প্রত্যাখ্যান করেছিল। অতঃপর ইহুদীরা শনিবারকে আর খ্রিষ্টানরা রবিবারকে তাদের ইবাদতের দিন বানিয়েছিল। অবশেষে আল্লাহ তায়ালা এ উম্মতের জন্য শুক্রবারকে মহান দিবস ও ফযীলতের দিনহিসেবে দান করেছেন। আর উম্মতে মুহাম্মদী তা গ্রহন করে নিল। [বুখারী ৮৭৬, ইফা ৮৩২, আধুনিক ৮২৫; মুসলিমঃ ৮৫৫]৩)জুম’আর দিন হল সাপ্তাহিক ঈদের দিন। [ইবনে মাজাহঃ ১০৯৮]৪)জুম’আর দিনটি ঈদুল ফিতর ও ঈদুল আযহার দিনের চেয়েও শ্রেষ্ঠ দিন। এ দিনটি আল্লাহর কাছে অতি মর্যাদা সম্পন্ন। (মুসনাদে আহমদঃ৩/৪৩০; ইবনেমাজাহঃ১০৮৪)

No comments

Powered by Blogger.